পশু খামারিদের সহায়তায় সোনারগাঁও ইউনিভার্সিটির অভিনব উদ্যোগ

করোনা সংকটের কারনে পশু খামারিরা তাদের পালিত কোরবানির পশু বিক্রি করা নিয়ে দুশ্চিন্তায় আছে। পশু খামারিদের এই দুশ্চিন্তা ও দুরবস্থার কথা বিবেচনা করে, পশু খামারিদের কল্যানে খামারিদের পাশে দাঁড়াতে কোরবানির পশু (কোনো প্রকার চার্জ ছাড়া) বিক্রি করার সুযোগ করে দিতে সোনারগাঁও ইউনিভার্সিটির শিক্ষক ও শিক্ষার্থীরা অনলাইন কোরবানির হাটের প্লাটফর্ম তৈরি করেছে। এই প্লাটফর্মটির পরিচালনার জন্য সোনারগাঁও ইউনিভার্সিটি-এসইউ এর শিক্ষার্থীরা প্লাটফর্ম ফিচার ডেভলাপমেন্ট ও পশু খামারিদের জন্য ভলেন্টিয়ারি দ্বায়িত্ব পালন করবে ।

যাচাই.কম লিমিটেড এর পরিচালিত জনপ্রিয় ই-কমার্স সাইট http://jachai.com/ এ কোরবানির হাট হোস্ট করে যৌথভাবে অনলাইন কোরবানির হাট পরিচালনা করার উদ্যোগ গ্রহণ করা হয়েছে। উক্ত অনলাইন কোরবানির হাট উভয় পক্ষ যৌথভাবে পরিচালনা করবে। এই প্লাটফর্মটির মাধ্যমে ক্রেতা ও বিক্রেতারদের জন্য সম্পূর্ণ ফ্রি (কোনো প্রকার চার্জ ছাড়া) কোরবানির পশু কেনাবেচা করার সুযোগ থাকবে।

প্লাটফর্মটি ব্যবহার করতে ক্রেতা ও বিক্রেতাকে রেজিস্ট্রেশন করতে হবে। বিক্রেতা তার কোরবানির পশুর ছবিসহ বিস্তারিত বিবরণ দিয়ে, প্রোফাইল অফলাইন ও অনলাইনে আপডেট করতে পারবে এবং ক্রেতা তার পছন্দের পশুর ধরন, পশুর রং, পশুর বয়স, বাজেট অনুযায়ী পছন্দের পশু উক্ত (http://jachai.com/) প্লাটফর্ম থেকে লোকেশন অনুযায়ী অনায়াসেই কিনতে পারবেন। উল্লেখ্য যে, এই প্লাটফর্ম টি সকল ধরনের কোরবানির পশু সম্পূর্ণ ফ্রি কেনাবেচা করার প্লাটফর্ম হিসেবে কাজ করবে। এখানে কোন প্রকার ফি বা চার্জ ছাড়া ক্রেতা-বিক্রেতাগন কেনা বেচা করতে পারবেন। একই সাথে বেকার হয়ে যাওয়া মানুষের কর্মসংস্থানের ব্যবস্থা করতে http://jachai.com/ প্লাটফর্ম কাজ করবে।

কেউ এক লোকেশন থেকে অন্য কোন লোকেশনে কোন কাজে যাওয়ার পরিকল্পনা করলে, পরিকল্পনাকারী ই-কমার্স সাইট http://jachai.com/ এ লোকেশন অনুযায়ী পন্য ডেলিভারি করার অনুরোধ পাঠাতে পারবে এবং ব্যক্তিগত কাজের আসা যাওয়ার পথে পন্য ডেলিভারি সেবা প্রদান করার মাধ্যমে সেবা গ্রহিতার নিকট থেকে বাড়তি আয়ের সুযোগ পাবে। এ ছাড়াও http://jachai.com/ এ পূর্নকালিন পণ্য ডেলিভারি করার কাজের জন্য অথবা কোরবানির মাংস কাটার অভিজ্ঞতা রয়েছে এমন যে কেউ যাচাই ডট কম অনলাইনে সম্পূর্ন ফ্রি রেজিস্ট্রেশন করে, সেবা গ্রহীতা প্রার্থীকে সেবা প্রদান করে, সেবা গ্রহিতার নিকট থেকে বাড়তি আয় করার সুযোগ পাবে।

গতকাল ১০ জুলাই শুক্রবার এক ভার্চুয়াল মিটিং এর মাধ্যমে সোনারগাঁও ইউনিভার্সিটির উপাচার্য অধ্যাপক ড. মো. আবুল বাশার উক্ত যাচাই ডট কম (http://jachai.com/) ই-কমার্স প্লাটফর্মে অনলাইন কোরবানির পশুর হাটের শুভ উদ্বোধন ঘোষণা করেন। উদ্বোধন এর সময় সোনারগাঁও ইউনিভার্সিটির মানননীয় উপাচার্য বলেন করোনা মহামারীর এই সময়ে সোনারগাঁও ইউনিভার্সিটির শিক্ষক ও শিক্ষার্থীদের এমন উদ্যোগ সত্যিই প্রশংসার দাবিদার এবং এর সাথে সম্পৃক্ত সকলকে আন্তরিক ধন্যবাদ জ্ঞাপন করেন। তিনি বলেন করোনার সময় হাটে গিয়ে পশু কিনতে গেলে করোনা ভাইরাসের মহামারী আরোও ছড়িয়ে পড়ার আশঙ্কা রয়েছে। তাই সকলকে অনলাইনে http://jachai.com/ থেকে অংসখ্য কোরবানির পশু থেকে যাচাই বাছাই করে যাচাই ডট কম থেকে কোরবানির পশু কিনে পরিবার পরিজন নিয়ে নিরাপদে ঈদ আনন্দ উপভোগ করার পরামর্শ দেন।

অনলাইন কোরবানির পশুর হাট সম্পর্কে Jachai.com Ltd. এর ব্যবস্হাপনা পরিচালক মোঃ আব্দুল আলিম, তিনি বলেন, অসহায় পশু খামারিদের পাশে দাঁড়ানোর যে মহান উদ্দ্যোগ সোনারগাঁও ইউনিভার্সিটি-এসইউ গ্রহন করেছে, এই মহৎ উদ্দ্যোগের প্রতি সম্মান প্রদর্শন করে এবং ক্রেতা ও খামারিদের অনলাইনে কেনা বেচার পদ্ধতি ইউজার ফ্রেন্ডলি বা সহজ করার জন্য http://jachai.com/ এ অনলাইন কোরবানির হাট চলাকালীন সময়ে কোরবানির পশু ছাড়া আমাদের http://jachai.com/ ইকমার্সের সকল ক্যাটাগড়ির অন্যান্য সকল ধরনের পণ্য বিক্রি বন্ধ রাখার সিদ্ধান্ত নিয়েছি। এই সাময়িক অসুবিধার কারনে http://jachai.com/ ই কমার্সের সকল নিয়মিত সেবা গ্রহণকারীদের নিকট দুঃখ প্রকাশ করছি। এই সময় আরো উপস্থিত ছিলেন সোনারগাঁও বিশ্ববিদ্যালয়ের ট্রেজারার, রেজিস্ট্রার, ডীন, বিভাগীয় প্রধান ও অন্যান্য কর্মকর্তাগণ এবং যাচাই ডট কম লি. এর চেয়ারম্যান আব্দুল আজিজ, তিনি বলেন, সোনারগাঁও ইউনিভার্সিটির শিক্ষক ও শিক্ষার্থীদের তৈরি করা উক্ত কোরবানির অনলাইন গরুর হাট প্লাটফর্মটি পশু খামারিদের দুশ্চিন্তার অবসান ঘটাবে । উভয় পক্ষের এই সমঝোতা চুক্তির আলোকে ঈদের দিন পর্যন্ত সোনারগাঁও ইউনিভার্সিটি এর সাথে jachai.com ltd. যৌথভাবে পশু খামারিদের এই সেবা প্রদান করে যাবে।

অনলাইন ডেস্ক

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Next Post

দিলশাদ হোসেন পদ্ম’র কবিতা : ঐশ্বর্য বনাম নীল চুড়ি

শনি জুলা ১১ , ২০২০
পুরো দিনটি হতে পারতো এক ঝলমলে কবিতা! অথচ দিনশেষে পড়ে রয়েছে একটি ভাঙা চুড়ি। চুড়ির ভাঙা প্রান্ত গেঁথে রয়েছে সব আনন্দের শিয়রে হে না-দেখা প্রেমিক! সমস্ত পৃথিবীর সব ঐশ্বর্যকে- হারিয়ে ফেলা চুড়ির বিপরীতে দাঁড় করাও। আমি তবু বলেই যাবো- “নীল চুড়ি এগারোটি। কখনো বারোটি হবে না।” 60 SHARES facebook.com/morningnewsfb https://twitter.com/MorningBd […]