যাত্রা শুরু করলো শিশু-কিশোরদের নিরাপদ ভিডিও শেয়ারিং সাইট “বেবিটিউব”

শুরু হয়েছে শিশু-কিশোরদের জন্য নিরাপদ, মজাদার এবং শিক্ষণীয় ভিডিও শেয়ারিং সাইট “বেবিটিউব”। শিশু-কিশোর নির্ভর অ্যাপ ভিত্তিক প্রথম ভিডিও শেয়ারিং সাইট এটি। অ্যাপের পাশাপাশি সেবাটি পাওয়া যাবে বেবিটিউবের প্রাতিষ্ঠানিক ওয়েবসাইটেও।

গত ২৩ অগাষ্ট রাতে অ্যাপটির উদ্বোধন করা হয়। ওই অনুষ্ঠানে অংশ নেন বাংলাদেশ ব্যাংকের সাবেক গভর্ণর ড. আতিউর রহমান, নিপোর্টের মহাপরিচালক সুশান্ত কুমার সাহা, বিআইডিএস-এর চেয়ারম্যান অর্থনীতিবিদ ড. নাজনীন আহমেদ, নিউজ ব্রডকাষ্টার অ্যাসোসিয়েশনের প্রেসিডেন্ট মুমতাহিনা রিতু, টাইমেক্স গ্রুপের চেয়ারম্যান ও সিইও সৌরভ আল জাহিদ, এইচবি এভিয়েশন ট্রেনিং সেন্টারের চেয়ারম্যান জাকি এস বারী, বিইউবিটি এর সহকারি অধ্যাপক তানভীর হাসান জোহা, চ্যানেল টিটির সম্পাদক শিবলী চৌধুরী কায়েস, ঝিনাইদাহ পৌরসভার মেয়র সাইদুল করিম মিন্টু, সিনিয়র নিউজ প্রেজেন্টার নাহিদ জামান সোমা, নিউজ থ্রি সিক্সটি বিডি’র ব্যবস্থাপনা সম্পাদক সুমাইয়া জামান।

বয়স ভেদে যে কেউ এই সাইটে ভিডিও আপলোড করতে পারবেন। তবে বেবিটিউবে শিশুদের বিকাশের পথে বাধা হয়, এমন কোনো ভিডিও দেয়া যাবে না। এর করার কারণ হচ্ছে, প্রতিটি শিশু যেনো থাকে নিরাপদে ইন্টারনেট ব্যবহারের আওতায়। অভিভাবকরাও যেনো হতে পারেন নিশ্চিন্ত। সে কারণেই বেবিতে শিশু-কিশোরদের জন্য ক্ষতিকারক ভিডিও থাকবে না। এ বিষয়ে সার্বক্ষনিক মনিটরিংয়ের মাধ্যমের অনুমোদনের পরই স্বল্প সময়ের মধ্যে অ্যাকাউন্ট হোল্ডারদের ভিডিওটি আপলোড করা হবে। সব ক্যাটাগরির  ভিডিও আপলোড করা যাবে। যেমন খেলাধুলা, কার্টুন, পড়াশোনা, মুভি, নাটক, গেম, গান, গজল, ট্রাভেল, ব্লগ, টেকনোলজিসহ শিশু-কিশোর নির্ভর সব ধরনের ক্যাটাগরিতে ভিডিও আপ করা যাবে। তবে সেগুলো হতে হবে শিশুদের জন্য পজিটিভ ও মজাদার।

আজকের শিশু-কিশোররা মোবাইল ও ইন্টারনেট ব্যবহার বান্ধন। তথ্য প্রযুক্তির ব্যবহার বেড়ে যাওয়ার কারণে প্রায় সব শিশু কিশোররা মোবাইল ও ইন্টারনেট ব্যবহারে বেশ আগ্রহী। আর তাই অভিভাবকদের দুশ্চিন্তা; তাদের সন্তান যেনো কোনোভাবেই খারাপ কিছুতে জড়িয়ে না যায়? তাদের দুশ্চিন্তার অবসান ঘটাতেই বেবি টিউবের উদ্যোগ।

ফাউন্ডার অ্যান্ড সিইও শামীম আশরাফ, কো-ফাউন্ডার সাজ্জাদুল ইসলাম এবং ব্যবস্থাপনা সদস্য রবিউল ইসলাম, ওয়াশিমুল রাফিন, আবির আহমেদ, হাসিবা হোসাইন, জামিল হোসাইন, মেহেদী হাসান, ইশফাক লাবিব, সুনায়া ইসলাম, রায়হান কবির ও আফরিদা জিনান এলমিসহ অনেকে। বেবিটিউবের মাধ্যমে শিশুদের জন্য একটা নিরাপদ ইন্টারনেট প্লাটফর্ম নিশ্চিত করার লক্ষ্য কাজ করে যাচ্ছেন বেবিটিউব পরিচালনা পর্ষদ। বিজ্ঞানের আশীর্বাদ থেকে শিশুদের বঞ্চিত না করে সঠিক ও শিক্ষণীয় বিষয় পৌঁছে দিতে নয়া আয়োজন ভিন্নধারার চিন্তা; বেবিটিউব।

বেবিটিউব কেনো করা হলো; দিন দিন বাড়ছে প্রযুক্তির ব্যবহার, প্রায় প্রতিটি পরিবারে বেড়েছে মোবাইল ও ইন্টারনেট ব্যবহার। সে কারণেই শিশু-কিশোরদের নিরাপদ ইন্টারনেট প্লাটফর্ম ভিডিও শেয়ারিং সাইট বেবিটিউব।

প্রযুক্তির দুনিয়ায় বেবিটিউব হবে শিশু-কিশোরদের জন্য শিক্ষণীয় ও নিরাপদ ইন্টারনেট প্লাটফর্ম। প্রতিটি শিশু-কিশোর যেনো থাকে নিরাপদ ইন্টারনেটের আওতায়। এর মাধ্যমে নিশ্চিত হবে সুস্থ ও সুন্দর জীবন। শিশু-কিশোর বান্ধব সুন্দর পৃথিবী গড়তে চায় বেবিটিউব।

Spread the love

তথ্যপ্রযুক্তি ডেস্ক

Leave a Reply

Your email address will not be published.

Next Post

সারা বিশ্বে পালিত হচ্ছে এইডস দিবস

মঙ্গল ডিসে ১ , ২০২০
আজ বিশ্ব এইডস দিবস । প্রতিবারের মতো এবারও স্বাস্থ্যবিধি মেনে বাংলাদেশে দিবসটি পালন করা হচ্ছে। ‘সারাবিশ্বের ঐক্য, এইডস প্রতিরোধে সবাই নেব দায়িত্ব’এই প্রতিপাদ্য সামনে রেখে এ বছর দিবসটি পালন করা হচ্ছে। ১৯৮৮ সাল থেকে এইডসের বিরুদ্ধে প্রতিরোধ ও জনসচেতনতা সৃষ্টির লক্ষ্যে বিশ্বে এ দিবসটি পালন করে থাকে। বিশ্ব এইডস দিবস […]