২০২০-২১ অর্থবছরের জন্য প্রস্তাবিত ৫ লাখ ৬৮ হাজার কোটি টাকার বাজেট পেশ করেছেন অর্থমন্ত্রী আ হ ম মুস্তফা কামাল। প্রায় ৬ লক্ষ কোটি টাকার বাজেটের আয় ধরা হয়েছে ৩ লাখ ৬৮ হাজার ১৩ কোটি টাকা। এর মধ্যে রাজস্ব প্রাপ্তি থেকে আয় ধরা হয়েছে ৩ লাখ ৭৮ হাজার কোটি টাকা। এনবিআর নিয়ন্ত্রিত কর ৩ লাখ ৩০ হাজার কোটি টাকা।

বৃহস্পতিবার (১১ জুন) বিকাল ৩টায় স্পিকার ড. শিরীন শারমিন চৌধুরীর সভাপতিত্বে জাতীয় সংসদে অর্থমন্ত্রী আ হ ম মুস্তফা কামাল বাজেট পেশ করেন।

ইতিহাসের সংক্ষিপ্ততম সময়ের বিশেষ এই বাজেট অধিবেশনে ‘অর্থনৈতিক উত্তরণ ও ভতিষ্যৎ পথ পরিক্রমা’ শীর্ষক স্লোগান সংবলিত ১১০ পৃষ্ঠার বাজেট পেশ করেন অর্থমন্ত্রী। এই বাজেট পাস হলে বেশ কিছু পণ্যের দাম বাড়তে ও কমতে পারে।

যেসব পণ্যের দাম বাড়তে পারে:
আমদানি করা দুধ ও দুগ্ধজাত পণ্য, আসবাবপত্র, ইন্টারনেট সংযোগ খরচ, সিগারেট, বিড়ি, জর্দা জাতীয় পণ্য, মোবাইল ফোন, সিম, মোবাইল ডাটা, প্রসাধন সামগ্রী, সিরামিক, অনলাইন ফুড, অনলাইন শপ, বিদেশি টিভি, শিল্প লবণ, আমদানি করা এসি, আমদানি করা মোটরসাইকেল, ব্যক্তিগত গাড়ির রেজিস্ট্রেশন ফি, লঞ্চ, চার্টার্ড বিমান ও হেলিকপ্টার ভাড়া।

যেসব পণ্যের দাম কমতে পারে:
আইসিইউ, করোনাভাইরাস শনাক্তের কিট, মাস্ক, কৃষি যন্ত্রপাতি, সোলার প্যানেল, সয়াবিন তেল, দেশীয় পোশাক, এলজিপি গ্যাস সিলিন্ডার, দেশে উৎপাদিত মোবাইল ফোন, এসি, রেফ্রিজারেটর, মোটরসাইকেল, ডিটারজেন্ট, ডায়াপার, এমএস রড, প্লাস্টিক পণ্য, চিনি, এসির কমপ্রেসার।

Spread the love

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

সমসাময়িক