জাতীয় পরিচয় পত্র সংশোধন করুন অনলাইনে

জাতীয় পরিচয় পত্র বা NID কার্ড বাংলাদেশী নাগরিকদের জন্য একটি বাধ্যতামূলক পরিচয় পত্র যা বাংলাদেশ নির্বাচন কমিশন প্রদান করে থাকে।

যেখানে আইডিধারী ব্যক্তির নাম, পিতা ও মাতার নাম, জন্ম তারিখ, আইডি নাম্বার, ছবি, স্বাক্ষর এমনকি আঙ্গুলের ছাপও থাকে। যার মাধ্যমে বাংলাদেশের নাগরিকদের সহজে শনাক্ত করা যায়।

মোবাইলের সিম কার্ড কেনা থেকে শুরু করে ভোট দেওয়া, ব্যাংক অ্যাকাউন্ট ওপেন করা, চাকরির আবেদন, বিয়ে, পাসপোর্ট, পেনশন তোলাসহ হাজারো কাজে এটি ব্যবহার হয়ে থাকে।

কিন্তু সমস্যা অন্য জায়গায়, যে পরিচয় পত্রের এতো প্রয়োজন সেটি যদি ভুলে ভরা হয় তাহলে সমস্যার অন্ত থাকে না।

ধরুন আপনি পাসপোর্ট করবেন, এমন সময় দেখলেন আপনার NID-তে আপনার পিতা মাতার নাম কোন কারণে ভুল হয়েছে অথবা আপনার নামের বানান ভুল হয়েছে, নয়তো আপনার জন্ম তারিখ বা ঠিকানা ভুল ছাপা হয়েছে। এবার তো আপনার মাথায় হাত, কি করে এই সমস্যা থেকে মুক্তি পাবেন ভাবতে ভাবতে আপনি পৌঁছে যাবেন হতাশার চূড়ান্ত পর্যায়ে।

তবে একটু চোখ-কান খোলা রাখলেই খুব সহজে এই সমস্যা থেকে মুক্তি মিলতে পারে।

NID-এর সমস্যা সমাধান করার জন্য সরাসরি চলে যান  https://services.nidw.gov.bd/voter_center ওয়েবসাইটে। সেখানে থাকে সাধারন জিজ্ঞাসা অপশন থেকে আপনার মনে উঁকি দেয়া প্রশ্নের উত্তরগুলো পেয়ে যাবেন।

প্রয়োজনীয় তথ্যের জন্য শরণাপন্ন হতে পারেন আমার আপনার সবার গুরু You Tube সাহেবের। সেখানে NID সংশোধন করার প্রচুর ভিডিও পাবেন।

NID সংশোধন এর ব্যাপারে সাহায্য করে এমন ফেসবুক গ্রুপেও জয়েন হতে পারেন। অনেকেই অনেকরকম তথ্য দিয়ে সহযোগিতা করে থাকে। তবে প্রতারিত হওয়ার সম্ভাবনা থাকে।

তাই না বুঝে কাউকে টাকা দিবেন না, নিজের কাজ নিজে করার চেষ্টা করুন, আনন্দ পাবেন।

প্রয়োজনে আপনার এলাকার নির্বাচন অফিসে যোগাযোগ করুন, আশানুরূপ ফল না পেলে আগারগাঁও নির্বাচন অফিসে চলে যাবেন। আশা করি দ্রুত সমাধান পাবেন।

 

 

 

Spread the love

মেহেদী হাসান রাজু

Leave a Reply

Your email address will not be published.

Next Post

এশিয়ান ইউনিভার্সিটির ৭ প্রোগ্রামে ভর্তিতে নিষেধাজ্ঞা দিয়েছে ইউজিসি

বুধ জানু ৬ , ২০২১
বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরি কমিশন (ইউজিসি) পর্যাপ্ত শিক্ষক না থাকার কারণে এশিয়ান ইউনিভার্সিটির পাঁচটি বিভাগের সাতটি প্রোগ্রামে শিক্ষার্থী ভর্তিতে নিষেধাজ্ঞা দিয়েছে। বিশ্ববিদ্যালয়টির রেজিস্ট্রারকে ইউজিসির বেসরকারী বিশ্ববিদ্যালয় বিভাগ থেকে এ বিষয়ে একটি চিঠি পাঠানো হয়েছে। ইউজিসির নিষেধাজ্ঞা দেয়া প্রোগ্রামগুলো হলো- বিএ (অনার্স) ইন বাংলা, এমএ ইন বাংলা, এমএসএস ইন ইনফরমেশন সায়েন্স এ্যান্ড লাইব্রেরি […]